Skip to Content

গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা সম্বন্ধে

গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা কি? গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা বুঝতে পারা প্রতিবাদ করাতে সাহায্য করে।

ডমেস্টিক অ্যান্ড ফ্যামিলি ভায়োলেন্সঃ আপনার নিজের দেখাশোনার জন্য কিভাবে পরিকল্পনা করবেন

1800RESPECT
24 AUG 2014

গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা

গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা হচ্ছে অন্তরঙ্গ সম্পর্ক বা অন্য প্রকার পারিবারিক সম্পর্কের ভিতরে এক ধরনের অপব্যবহারসুলভ আচরণ যেখানে এক ব্যক্তি অপর ব্যক্তির উপর ক্ষমতার স্থান দখল করে এবং ভীতির সঞ্চার করে। ইহা গার্হস্থ্য হিংস্রতা, পারিবারিক হিংস্রতা বা অন্তরঙ্গ সঙ্গীর হিংস্রতা নামেও পরিচিত।

এই ধরনের হিংস্রতা বহু ধরনের ভিন্ন সম্পর্কের ক্ষেত্রে ঘটতে পারে, যেমনঃ স্বামী ও স্ত্রীর বা বালিকাবন্ধু ও বালকবন্ধুর মধ্যে; সাবালক ও শিশুদের বা সাবালক ও বয়োজ্যেষ্ঠ মাতাপিতার মধ্যে; বা বর্ধিত পরিবারের সদস্যদের মধ্যে যেমন ফুফু/খালা/চাচী/পিসী/মাসি/কাকি/জেঠী, ফুফা/খালু/চাচা/পিসা/মেসো/কাকা/জেঠা ও দাদা/দাদী/নানা/নানী/ঠাকুরদাদা/ঠাকুরমার মধ্যে; বা একত্রে অযৌন সম্পর্কে বসবাসরত ব্যক্তিদের মধ্যে।

একে সচরাচর জোরজবরদস্তি ও নিয়ন্ত্রনের ধরন হিসাবে নির্দেশ করা হয়। অপব্যবহারকারীদেরকে কখনও কখনও ‘হিংস্রতা সংঘটনকারী’ বলা হয়।

সব সময় সম্পর্ক শেষ হওয়ায় সঙ্গে সঙ্গে গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতার অবসান হয় না, সুতরাং ইহা প্রাক্তন সঙ্গীদের মধ্যেও ঘটতে পারে।

অপব্যবহারকারীগণ ক্ষমতা ও নিয়ন্ত্রন বজায় রাখতে বহু কৌশল ব্যবহার করে, যেমনঃ

  • শারীরিক আক্রমণ, যেমন স্বাসরোধ করা, প্রহার করা, ধাক্কা দেওয়া এবং ক্ষতি করার ভয় দেখান।

  • যৌন হিংস্রতামূলক কাজ, জোরপূর্বক সঙ্গম বা জোরপূর্বক অন্য কাউকে দিয়ে যৌন ক্রিয়া করান যা তাঁরা করতে চান না।

  • ভাবাবেগের অপব্যবহার, গালিগালাজ ও তাচ্ছিল্য করা, অসম্মানসূচক আচরণ করা।

  • ভরণপোষণ, পরিবার ও সমাজ হতে বিচ্ছিন্ন করা, বা পরিবার ও সমাজকে ভয় দেখানর কাজে ব্যবহার করা। টেক্সট্ সংবাদ পাঠান বা ফেসবুকে বিজ্ঞাপন দান এর অন্তর্ভূক্ত হতে পারে।

  • ইণ্টারনেটে গোপন অনুসরণ, সামাজিক সংবাদ মাধ্যমের সাহায্যে, জিপিএস গমনপথ অনুসরণ যন্ত্রের সাহায্যে, ইত্যাদি সহ চোরা পায়ে অনুসরণ করা বা ‘প্রতি পদক্ষেপের’ উপর জাগ্রত দৃষ্টি রাখা।  

  • মানসিক অপব্যবহার, যেমন অপব্যবহারভোগী ব্যক্তিকে তাঁর আচরণের জন্য দোষ দেওয়া; অপব্যবহারভোগী ব্যক্তিদেরকে বলা যে তাঁদের মানসিক স্বাস্থ্যগত সমস্যা বা উদ্বেগ ব্যাধিগ্রস্থতা আছে; স্বেচ্ছাকৃতভাবে বাস্তব ঘটনাকে বিকৃত করা বা স্বীয় উদ্দেশ্য সাধনে ববহার করা; ব্যক্তিগত দ্রব্যাদির বা আসবাবপত্রের অপসারণ এবং পরে অস্বীকার করা যে সেরূপ করা হয়েছে; এবং অস্বীকার করা যে অপব্যবহারসুলভ আচরণ ঘটেছে।

  • আর্থিক অপব্যবহার, যেমন খোরপোশ বা ‘ঘর গৃহস্থালির ব্যয়’ দিতে অস্বীকার করা; কোন ব্যক্তিকে কাজ করতে না দেওয়া; শিশু সহায়ক কার্যক্রমকে স্বীয় উদ্দেশ্য সাধনে ববহার করা; কোন ব্যক্তিকে ভয় দেখিয়ে আইনগত ও অর্থ সংক্রান্ত  দলিলে দস্তখত করতে বলা যা তাঁদেরকে দেনায় ফেলবে; কারো কাছে জবরদস্তি অর্থ দাবী করা।  

  • কোন ব্যক্তিকে তাঁর আধ্যাত্মিক বা ধার্মিক কাজকর্ম করতে না দেওয়া, বা জোর করে তাঁদেরকে কোন ধর্ম বা আধ্যাত্মিকতা গ্রহন করান যা তাঁদের নিজের নয়।

  • শিশু সহ প্রিয়জনদের ক্ষতি করা বা ক্ষতি করার ভয় দেখান।

  • পোষা প্রাণীর ক্ষতি করা বা ক্ষতি করার ভয় দেখান।

  • আইনগত অপব্যবহার, যেমন পারিবারিক আইন বিধানের সুযোগ নিয়ে কোন ব্যক্তিকে ভয় দেখান, সর্বস্বান্ত করা, সুযোগ গ্রহন বা ক্ষমতাহীন করা।

অপব্যবহারকারীগণ নিয়ন্ত্রণ প্রয়োগ করতে প্রত্যেক সম্পর্কের জন্য অনুপম পথ ব্যবহার করে। কোন সম্পর্কের ক্ষেত্রে, ঔষধপত্রের সরবরাহ স্থগিত রাখা নিয়ন্ত্রণের একটি পদ্ধতি। স্বীয় উদ্দেশ্য সাধনের জন্য আচরণ, যেমন কেউ কোন সম্পর্ক ত্যাগ করতে চাইলে আত্মহত্যা বা আত্ম-ক্ষতির ভয় দেখানও নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতির একটি অংশ। যেক্ষেত্রে কোন মহিলা পঙ্গুতার জন্য সাহায্য বা তত্বাবধানের উপর নির্ভরশীল, উক্ত তত্বাবধান স্থগিত করা বা স্বীয় উদ্দেশ্য সাধনের জন্য উক্ত তত্বাবধান যে ভাবে ব্যবহার করা হয় যে তা একটি পদ্ধতি বা নিয়ন্ত্রণ স্থাপন করে, তাহলে তা ক্ষমতার অগ্রহনযোগ্য ব্যবহার। শিশুকে স্থির করান বা স্তন্যপান করান বন্ধ করে মাতৃকর্তব্যের ধ্বংস সাধন এক ধরনের গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা।

মহিলাদের গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা ভোগ করার সম্ভাবনা অধিকতর।

পরিসংখ্যানে দেখা যায় যে গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা পুরুষগণের দ্বারা মহিলাদের বিরুদ্ধে সংঘটনের সম্ভাবনা সর্বোত্তম।

কোন কোন মহিলা গোষ্ঠী গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা ভোগ করার অধিকতর ঝুঁকির সম্মুখীনঃ

  • গর্ভবতী মহিলাগণ।

  • বিচ্ছেদ প্রাপ্ত মহিলাগণ।

  • পঙ্গুতাভোগী মহিলাগণ।

  • আদিবাসী ও টরেস ষ্ট্রেইট দ্বীপবাসী মহিলাগণ।

গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা সম্বন্ধে কতিপয় সত্য ঘটনা

  • মহিলাগণের সঙ্গী বা ভূতপূর্ব সঙ্গীদের দ্বারা সংঘটিত গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতা ভোগ করার সম্ভাবনা অধিকতর।

  • অপব্যবহারকারীগণ সুদর্শন এবং তাদের সমাজে সম্মানীয় ব্যক্তি হতে পারে, বা নিজেদেরকে শিকার হিসাবে চিত্রিত করে। লোকজন যাঁরা গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতার সঙ্গে বাস করেন সচরাচর মত প্রকাশ করেন যে তাঁরা ‘ডক্টর জেকিল ও মিষ্টার হাইড’, বা ‘পথে দেবতা/ঘরে অপদেবতা’র সঙ্গে বাস করছেন।

  • অপব্যবহারকারীগণ সচরাচর তাদের অপব্যবহার অস্বীকার করে বা যাঁকে অপব্যবহার করছে তাঁকেই দোষ দেয়। তারা অপব্যবহারসুলভ আচরণ ন্যায়সঙ্গত বা করার অধিকারপ্রাপ্ত বলে মনে করে।

  • শিশুরা যারা গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতার সঙ্গে বাস করে এর দ্বারা প্রভাবিত হয়, যদিও তারা হিংস্রতা দেখতে বা শুনতে না পায়।  এর কারণ হচ্ছে ভয় ও গার্হস্থ্য জীবনের বিচূর্ণতা যা তাদের তত্বাবধায়কগণ ভোগ করছেন। শিশুদের জন্য, গার্হিক ও পারিবারিক হিংস্রতা দৈহিক অসুস্থতা।

  • সমকামী, স্বকামী নারী, মিশ্রলিঙ্গ ও মধ্যলিঙ্গ ব্যক্তিরাও গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতার সম্পর্কে জড়িত হতে পারে।

বাড়িতে অন্যান্য ধরনের হিংস্রতা

সব রকমের হিংস্রতাই অগ্রহনযোগ্য। গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতার মতই, পরিবারের ও সম্পর্কের মধ্যে অন্যান্য ধরনের হিংস্রতাও সংঘটিত হয়। এসব ক্ষমতা ও নিয়ন্ত্রণ বিষয়ক আচরণের ধরনের সঙ্গে আবশ্যিকভাবে যুক্ত নয়, কিন্তু এগুলি প্রত্যেক ব্যক্তির জন্য এবং পরিবার ও সামাজিক সংহতির জন্য ক্ষতিকর।

যে কোন ধরনের সম্পর্কের মধ্যে হিংস্রতা ঘটতে পারে। এর অন্তর্ভূক্ত নারীদের দ্বারা পুরুষদের উপর হিংস্রতা, বয়োজ্যেষ্ঠ লোকজন বা পঙ্গুতাগ্রস্থ লোকজনকে লক্ষ্যবস্তু করে হিংস্রতা, এবং মাতাপিতার প্রতি তরুণ-তরুণীদের হিংস্রতা।

যে সব লোক বাড়িতে অন্যান্য ধরনের হিংস্রতা বা অপব্যবহার ভোগ করেন তাঁরা গার্হস্থ্য ও পারিবারিক হিংস্রতাভোগীদের মত একই ভাবে আঘাত পেতে, ক্ষতিগ্রস্থ হতে বা অপমানিত হতে পারেন।

শিশুর অপব্যবহারও বাড়িতে এক ধরনের হিংস্রতা এবং কখনই গ্রহনযোগ্য নয়। আপনি যদি অপব্যবহারভোগী তরুণ-তরুণী হন, আপনি ১৮০০ ৫৫ ১৮০০ নম্বরে ফোন করে Kids Helpline এর সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারেন বা ০০০ নম্বরে পুলিশ ডাকতে পারেন। আপনি যদি প্রত্যক্ষ বিপদের সম্মুখীন হন তাহলে ০০০ নম্বরে পুলিশ ডাকুন।

আপনি যদি এই সব অন্যান্য ধরনের হিংস্রতা কোন সম্পর্কের মধ্যে বা আপনার পরিবারের মধ্যে ভোগ করেন, তা হলেও এই সাইটের তথ্যাবলী মূল্যবান হবে, এবং এখানে তালিকাভূক্ত সেবাকর্মগুলির অনেকগুলি সহায়ক হবে। 1800RESPECT লাইনটি যে সব লোক সব ধরনের সম্পর্কের অপব্যবহার বা গৃহে হিংস্রতার সঙ্গে বাস করছেন তাঁদেরকে সহায়তা ও তথ্য দিতে পারে। ১৮০০ ৭৩৭ ৭৩২ নম্বরে ফোন করুন।

 

প্রত্যক্ষ বিপদের সম্মুখীন হলে পুলিশের সাহায্যের জন্য ০০০ নম্বরে ফোন করুন।

টিটিওয়াই বা ন্যাশনাল রিলে সার্ভিস ব্যবহার করে জরুরী ফোন করতে চাইলে Calls to emergency services দেখুন।